Home / আলোচিত খবর / প্রবাসীদের জন্য ডিসেম্বরের মধ্যে যে সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন সৌদির প্রধান কিং সালমান..

প্রবাসীদের জন্য ডিসেম্বরের মধ্যে যে সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছেন সৌদির প্রধান কিং সালমান..

প্রবাসের কথা ডেস্ক, – প্রবাসিদের বকেয়া বেতন ডিসেম্বরের মধ্যে প্রদান করতে সৌদির কোম্পানীগুলোকে আদেশ দিয়েছেন কিং সালমান। সৌদির প্রধান কিং সালমান তার দেশে খেটে খাওয়া প্রবাসীদের বেতন অপরিশোধিত রাখাকে খুবই নেক্কারজনক হিসেবে দেখছেন।

প্রতিটি প্রাইভেট কোম্পানিকে খুব দ্রুত তা পরিশোদের আহ্বান জানান। এর সাথে সাথে যারা ও যে সকল কোম্পানি প্রবাসীদের পারমিট দিয়ে ও তাদের বর্তমান ধ্বসের কারণে প্রবাসীদের তারিয়ে দিতে চান তার একটি বিহিত ব্যবস্থা করতে বদ্ধপরিকর কিং সালমান।

তার দেশের অর্থনীতির অবনতিকে কাটিয়ে উঠে আর বেশি প্রবাসি শ্রমিক নিয়োগ দিতে তিনি প্রস্তুত। সৌদি সরকার ২০১৬ সালের ডিসেম্বর শেষ হওয়ার আগেই প্রবাসী শ্রমিকদের বেসরকারি খাতে কোম্পানি সঙ্গে পাওনা নিষ্পত্তির জন্য এক গুরুতবপুর্ণ কাউন্সিল করেন।

king-salman

ডেপুটি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান, দ্বিতীয় উপ-প্রধানমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষামন্ত্রী সহ দেশটির বেশ কিছু শীর্ষ পর্যায়ের লোক সোমবার রিয়াদে অর্থনৈতিক ও উন্নয়ন বিষয়ক কাউন্সিলের সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সৌদি আরবে আগামী মাসের মধ্যেই প্রাইভেট কোম্পানিকে তাদের বকেয়া অর্থাৎ প্রবাসীদের বকেয়া দিতে হবে বলে জানিয়েছেন। একটি কমিটির ডেপুটি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের নেতৃত্বে সোমবার বলেন, প্রবাসীদের বেতন কোন কোম্পানীদের কাছে বকেয়া পরে থাকতে পারে না। তা খুব শিগগিরি পরিশোদের তাগিদ প্রদান করেন।

উক্ত কাউন্সিল প্রবাসীদের বকেইয়া পূরনে বিকল্প সমাধান ও পদ্ধতি তৈরি করেছেন। পাওনা যে খরচ তার প্রয়োজনীয়তা পূরণ ও নিষ্পত্তির জন্য একটি প্যাকেজ নিয়ে এসেছেন তিনি।

কাউন্সিল আলোচনায় বলেন, প্রয়োজনে বেতন পরিশোধ করার পরিমাণে সরকারী কোষাগার থেকে অর্থের জোগান দিয়ে বেসরকারি খাতে শোধ করার তাগিদ দেন। তা পরে কোম্পানী সরকারকে অবশ্যই পরিশোধ করে দিবে।

তেল রাজস্বের অধপতনে বেতন পরিশোধ করতে বিলম্ব ঘটে। এই অবস্থায় রাজ্যের পতনের মাধ্যমে এই অবস্থার সৃষ্টি হয়। গৃহীত প্রকল্পের একটি সংখ্যার উপর খরচ কমার কারণে বেতন পরিশোধ করতে দেরি হয়ে গেছে বলে জানা যায়।

প্রবাসীদের বেতন বকেয়ায় তাদেরকে প্রবাস জীবন ত্যাগ করেতে বাধ্য করেছে। প্রধানত নির্মাণ খাতে শ্রমিকদের মাসের পর মাসের বেতন আটকে থাকায় তারা মজুরি ফিরে পাবার জন্য অপেক্ষা করেছেন ও কেঁদেছেন।

এপ্রিল মাস ২০১৬ সালে ডেপুটি ক্রাউন প্রিন্স সালমান অর্থনৈতিক বৈচিত্রতা এবং আগামী বছরগুলোতে সামাজিক উন্নয়নের পরিবর্তনের জন্য একটি বহুদূর বিস্তৃত পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করেন।

সৌদি আরবে ভর্তুকি মধ্যেও কেবিনেট মন্ত্রীর বেতন হ্রাস এবং প্রধান প্রকল্পের বিলম্ব সহ বিভিন্ন ব্যবস্থার একটি সিরিজ গ্রহণ করেছে দেশটির প্রধান।

প্রারম্ভিক গতমাসে সৌদি বিনলাদিন গ্রুপের প্রধান বলেন, সরকার বিগত দুই সপ্তাহের মধ্যে কিছু পেমেন্ট স্থানান্তরিত করতে চেয়েছেন।

এটা তার অবশিষ্ট কর্মচারীদের কিছু কর্মিদের ফিরে আনার ও মজুরি প্রদান করতে সক্ষম হওয়ার জন্য। কোম্পানী ইতিমধ্যে প্রায় ৭০ হাজার শ্রমিকের পেমেন্ট সমাপ্ত করেছে ও বেতন বন্ধের ঘোষণা করেন।

এর দ্রুত সলিউশন এ অবিলম্বে এই পরিকল্পনার বাস্তবায়ন করা হবে বলে আশা প্রকাশ করেন। ডিসেম্বর ২০১৬ এর আগে সম্পন্ন করবেন প্রবাসী শ্রমিকদের বকেয়া বেতন। যদি ও এটা বিলম্বিত পেমেন্ট একটি আলোচনায় বলেন তিনি।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

সাড়ে ৯ মাসের মধ্যে সর্বনিম্নে চলে এসেছে স্বর্ণের দাম!..

প্রকাশঃ ২৬-১১-২০১৬, ৬:০৭ অপরাহ্ণ Allbdnews24.com  ডেস্ক – শক্তিশালী ডলারের চাপে আন্তর্জাতিক বাজারে ধারাবাহিকভাবে কমছে মূল্যবান ...